ছিলেন ছিচকে চোর ! বিটিভি’র ভূয়া পরিচয় দিয়ে বনেছেন সাংবাদিক

তুহিন সারোয়ার-
বিটিভির প্রতিনিধি নন। নেই প্রতিষ্ঠানের সাথে কোনো সম্পৃক্ততা। তবুও বছরের পর বছর ধরে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল বিটিভির লোগো ব্যবহার করে  উত্তরা এলাকায় বনেছেন সাংবাদিক !
এক সময় ছিলেন উত্তরার ছিচকে চুর ! নিজের নামটাও যিনি ঠিক করে লিখতে পারেনা তিনি এখন একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার মালিক, পত্রিকার প্রিন্টার্স  লাইনে পদবী লিখেছেন বার্তা  সম্পাদকের মত গুরুত্বপূর্ণ পদ !
.
বলছিলাম, উত্তরা ৮ নং সেক্টর, ফায়দাবাদ রেলগেট এলাকায় বসবাসরত, কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার অর্ন্তগত নাগের কান্দি গ্রামের আজহারুল হক এর ছেলে, রাজু আহমেদ ওরফে সায়মার কথা !
.
উত্তরায় এক নাচের স্কুলে, এক সময়ের জনপ্রিয় নায়ক জাভেদ এর মানিব্যাগ থেকে টাকা চুরি করে ধরা পড়েছিলেন। ঘটনাটি জানাজানি হলে উত্তরার সিনিয়র এক সাংবাদিক বিচার করে ছাড়িয়ে আনেন ! সেই থেকে সাংবাদিকদের সাথে সক্ষতা গড়ে তুলে, রাতারাতি বনে যান সাংবাদিক। সংবাদ লিখার যোগ্যতা না থাকার কারনে শুরুতে বিভিন্ন রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে ছবি তোলার কাজ করতেন । তারপর গাজীপুরে কর্মরত বিটিভির প্রতিনিধির স্নেহধন্য হয়ে তার ব্যাক্তিগত ক্যামেরাম্যান হিসেবে কাজ করেন!
.
এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি, তখন থেকে ধিরে ধিরে নিজেকে বিটিভির প্রতিনিধির ভূয়া পরিচয় দিয়ে মোটর সাইকেলের সামনে বিটিভি’র বিশাল ষ্টিকার লাগিয়ে, দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন উত্তরা,গাজীপুরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা । কোন বেতন না পেলেও  ১,৭৫০০০/ (এক লক্ষ পচাত্তর হাজার) টাকা দিয়ে সরকারী নীতি লংঘন করে তিনি “মুত্তির চেতনায় বাংলাদেশ” নামক একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার মালিকানা কিনেছেন !
.
যিনি সাংবাদিকতার আড়ালে, মেয়ে দিয়ে দেহ ব্যবসা এবং ব্ল্যাকমেইলিং, চাদাবাজীসহ নানান অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাম্প্রতি “দেশপত্র” পত্রিকাসহ বিভিন্ন অনলাইন গণমাধ্যমে তার এসব অপকর্ম নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হবার পর-ই,  বিষয়টি উত্তরার গণমাধ্যমকর্মী থেকে সাধারণ মানূষের নজরে আসে ।
.
উক্ত পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ হবার পর, স্থানীয় সাংবাদিকরাসহ খুশি নানা পেশার মানূষজন ! নাম প্রকাশ না করার শর্তে, উত্তরায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাজনীতিবীদ, ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকরা বলেন, তাদের কাছে সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন প্রকাশের নাম করে বিভিন্ন মেয়ে দিয়ে অভিনব কায়দায় টাকা দাবী করতো। টাকা না দিলে ইভটিজিং ও নারী নির্যাতন এর মামলা দিবেন বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করতো এই প্রতারক।
এছাড়াও তার বিরুদ্ধে রয়েছে,  পরনারীকে নিজের স্ত্রী সাজিয়ে সর্বনাশ ঘটানোর গা শিউরে উঠার মতোও অভিযোগও।
.
প্রতারনার ধরন:-
তার টাগের্ট,  বড় ব্যাবসায়ী, রাজনীতিবীদ, লোকাল কাউন্সিলর, প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ! তারপর বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করার নামে তার চক্রের সুন্দরী মেয়েদের পাঠাতো ! গড়ে তুলতো সক্ষতা, এক সময়, সেসব ব্যাক্তিদের বাসায় দাওয়াত দিয়ে নিয়ে, নেশা জাতীয় জিনিস খাইয়ে অন্তরঙ্গ ভাবে ছবি এবং ভিডিও করে । তারপর রাজু টিভিতে সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে তাদের চাহিদামত টাকা আদায় করার অভিযোগ উঠেছে।
.
এসব অপকর্মের স্বীকারোক্তি দিয়েছিলেন রাজুর আরেক অপকর্মের সহযোগী, রাজুর রক্ষিতা, সাংবাদিক নামধারী হাফছা আহমেদ মিতু । প্রতারনার স্বীকার ব্যাক্তিরা সামাজিক ,রাজনৈতিক এবং পারিবারিক সম্মান নষ্ট হবার ভয়ে মুখ খুলেনি এই নামধারী সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ।
.
শুধু তাই নয়, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ভূয়া দাওয়াত কার্ড তৈরি করে সুকৌশলে দাওয়াতের নামে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে যায়, পরবর্তীতে মোট অংকের টাকা দাবী করেন। টাকা না দিলে সেসব ইভটিজিং ও নারী নির্যাতন এর মামলা দিবেন বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়।
১- পাসপোর্ট এবং এনআইডি চুরির অভিযোগে থানায়  মিথ্যা  অভিযোগ
২-ধর্ষণের মত  গুরুতর অভিযোগ এনে এই প্রতিবেদকের বিরুদ্ধে থানায়, রাজু কর্তৃক মিতুর  অভিযোগ । 
৩-পূবাইলের এক গার্মেন্টস  কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রাজু কর্তৃক মিতুর  অভিযোগ ।
.
রাজুর অপকর্মের সহযোগী   হাফছা আহমেদ মিতু ‘কে দিয়ে-
বিভিন্ন ব্যাবসায়ী, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অভিযোগে সাধারন ডায়েরী এবং মামলা করিয়ে উক্ত ব্যাক্তিদের ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করেন । সেসব অভিযোগের কপি এই প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে । 
.
শুধু তাই নয়, গাজীপুর গাছা থানায় এই প্রতিবেদকের নামে ধর্ষণের মত একটি গুরুতর অভিযোগ এনে রাজু, হাফছা আহমেদ মিতুকে দিয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করান, যা প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের কাছে মিথ্যে প্রমান হলে,  সে অভিযোগ পুলিশ আমলে নেয়নি ।
রাজুর গ্রামের বাড়ী, দাউদকান্দি থানার অর্ন্তগত নাগের কান্দি গ্রামের  আ: সাত্তার মিয়া (৪৮) জানান, রাজু ছোট বেলায় গ্রামে থাকাকালীন, সে কোনদিন স্কুলেও যায়নি, তিনি্ এই প্রতিবেদকের কাছে উল্টো প্রশ্ন ছুড়ে বলেন-, পড়ালেখা না জানা লোক সে আবার সাংবাদিক হয় কেমন করে ?একই এলাকার হেলাল (৪০) নামে এক ব্যাক্তি জানান, ছোটবেলায় গ্রামে চুরি করে ধরা খেয়ে পালিয়ে ঢাকায় চলে যায়, এখন এলাকায় আসেনা ! 
.
ফেসবুকে প্রতারনার ধরন-
মুত্তির চেতনায় বাংলাদেশ, সাংবাদিক ক্লাব উত্তরাসহ কয়েকটি ফেসবুক পেইজ এডমিন তিনি, সেসব পেইজে বিভিন্ন পেশার মানুষজন ছাড়াও পেশাদার সাংবাদিকদসহ সমাজের বিত্তবানদের বিরুদ্ধে খারাপ মন্তব্যের পাহাড় গড়ে তুলেছে। সেই আইডিতে বিভিন্ন সময় সংবাদ ও সাংবাদিকদের নামে কুরুচিপূর্ন মন্তব্য লিখে মানহানী করার চেষ্টার প্রমান মিলেছে উক্ত ফেসবুক এবং পেইজগুলোর পোষ্ট দেখে ।
ছবি:- রাজু তার ফেসবুকে, এই  প্রতিবেদকের  স্ত্রী সন্তানের ফ্যামেলী ছবি পোষ্ট করে সম্মানহানী করে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা  করেছিলেন !
.
উত্তরা এলাকায় মূলধারার অনেক গণমাধ্যমকর্মীরা রাজুর বিষয়ে ঘৃণা প্রকাশ করে কেউ কোন মন্তব্য করতে চায়নি ।
এবিষয়ে মন্তব্য জানার জন্য কথিত সাংবাদিক রাজুর সেল নাম্বারে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায় ।
.
বাংলাদেশ টেলিভিশন ( বিটিভি) এর  বক্তব্য- 
বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) এর উপ-মহাপরিচালক (বার্তা) অনুপ কুমার খাস্তগীর বলছেন, বিটিভি নিউজ কিংবা বার্তা বিভাগে রাজধানীর উত্তরা এলাকায় কেন, দেশের কোথাও মো. রাজু আহমেদ নামে আমাদের কোনো কর্মী নেই।

মোটরসাইকেলে ‘বিটিভি সংবাদ’ লেখা স্টিকার লাগিয়ে সর্বত্র যে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি কমপ্লিট একজন প্রতারক। মিডিয়া কর্মী হিসেবে অতিশীঘ্রই তাকে ধরে সংশ্লিষ্ট থানায় সোপর্দ করাটা আপনারও দায়িত্ব রয়েছে।বিটিভির বার্তা বিভাগের শীর্ষ ওই কর্মকর্তা লিখিত বার্তা ছাড়াও মঙ্গলবার (০৮ জুন) দুপুর ২ টা ৫০ মিনিটে এ বক্তব্য তুলে ধরেন ।

.
গাজীপুর জেলা প্রেসক্লাব এর সভাপতি,
সিনিয়র সাংবাদিক, এ,কে,এম রিপন আনসারী মনে করেন, এ দেশে প্রতারণা করে সহজে পার পাওয়া যায়, এ কারণে সাংবাদিকতার নামেও প্রতারণা বেড়ে যাচ্ছে। এই প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘সাংবাদিক’ নামধারী অপরাধীদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তির মাধ্যমে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারলেই এই প্রতারণা রোধ করা সম্ভব। এ জন্য গণমাধ্যম ও নিরাপত্তা বাহিনীর সমন্বিত উদ্যোগ জরুরি।
.
উত্তরার  দৈনিক ইত্তেফাক সাংবাদিক, সংগঠক, কাজী রফিক বলেন,
মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে  সাধারণ মানুষের কাছে বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছি। উত্তরা এবং টংগী এলাকায় ঘরে ঘরে যেভাবে পঙ্গপালের মতো সাংবাদিক তৈরী হচ্ছে এবং এই মহান পেশা যেভাবে কুলশীত হচ্ছে, তাতে করে আগামী ৫ বছর পর মূলধারার সাংবাদিকরা এই পেশা ছাড়তে বাধ্য হবে। তিনি আরো বলেন, দ্রুত এই সকল অপ-সাংবাদিকতা বন্ধ করতে মূলধারার সাংবাদিকদের এগিয়ে আসতে হবে।
.
এ দেশে যখন, খুশী কবির, এলিনা খান’রা যখন মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করেন, তখন এর বিপরীতে গাজীপুরের বিভিন্ন থানায় তালিকাভুক্ত অপহরনকারী চক্রের হোতা, বার বার গ্রেফতার হয়ে জেল খাটা আসামি শাহিনরাও শক্ত অবস্থান নিয়ে মানবাধিকার এবং সাংবাদিকের আইডি কার্ড ব্যবহার করছেন।
.
এদেশে কামাল লোহানী, আকরাম হোসেন খাঁন, রেহমান সোবহান এর মতো ব্যক্তিত্বও মানবাধিকারকর্মী,
অন্যদিকে রাজুর সহযোগি উত্তরা এলাকার ইয়াবাসেবী, পেশাদার যৌনকর্মি হিসেবে খ্যাত হাফছা আহমেদ মিতুও হয়েছেন “গাজীপুর জেলা নারী সাংবাদিক কল্যাণ সংস্থা”র সাধারন সম্পাদক ! আরো কাধে বহন করছেন…. অসংখ্য গণমাধ্যমের কার্ড এবং অনেক মানবাধিকার সংগঠনের ভাইটাল পদ !
.
আর লেখাপড়া না জানা ছিচকে চোর রাজু আহমেদ সায়মাও হয়েছেন,  মিডিয়ার মালিক ও “সাংবাদিক ক্লাব উত্তরা”র সভাপতি ।
– চলবে

Feedback

One comment on “ছিলেন ছিচকে চোর ! বিটিভি’র ভূয়া পরিচয় দিয়ে বনেছেন সাংবাদিক

  1. Avatar for allbdnews

    займ с очень плохой кредитной историей

    Первый займ под 0%. Круглосуточно

    В последнее время от многих людей можно услышать вопрос «где взять
    денег». Коммуналка дорожает, продукты дорожают, энергоносители — тоже не отстают.

Leave a Reply